সোমবার ৪ জুলাই, ২০২২ | ২০ আষাঢ়, ১৪২৯

সিলেটে ফাঁসির মঞ্চ প্রস্তুত : বাড়িতে পুলিশের নিরাপত্তা বেষ্টনি

স্টাফ রিপোর্টার,সংবাদমেইল২৪.কম | রবিবার, ০৯ এপ্রিল ২০১৭ | প্রিন্ট  

সিলেটে ফাঁসির মঞ্চ প্রস্তুত : বাড়িতে পুলিশের নিরাপত্তা বেষ্টনি

সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত জঙ্গি নেতা দেলোয়ার হোসেন রিপনের প্রাণ ভিক্ষার আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ। ফলে তার ফাঁসি কার্যকরে আর কোন বাধা থাকলো না। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আসার পর জেলকোড অনুযায়ী ফাঁসি কার্যকর করতে পারবে কারা কর্তৃপক্ষ।

রোববার (৯ এপ্রিল) স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের জানান, হরকাতুল জিহাদের শীর্ষ নেতা মুফতি আব্দুল হান্নান, তার সহযোগি শরীফ শাহেদুল বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন ওরফে রিপনের প্রাণ ভিক্ষার আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি।


সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার ছগির মিয়া জানান, রাষ্ট্রপতি জঙ্গি নেতা দেলোয়ার হোসেন রিপনের প্রাণ ভিক্ষার আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন বলে আমরাও শুনেছি। কিন্তু এ সংক্রান্ত কোনও কাগজপত্র এখনও আমাদের কাছে এসে পৌঁছায়নি। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাওয়ার পর কারা বিধি অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

৩ জঙ্গির মধ্যে বাকি দুজন বন্দি আছেন গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে।


এদিকে, রোববার দুপুরে জঙ্গি নেতা দেলোয়ার হোসেন রিপনের সঙ্গে কারাগারে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। শিশু, নারী ও পুরুষসহ প্রায় ১২ জন রিপনের সঙ্গে দেখা করে ২৫ মিনিট কথা বলেন। এসময় রাষ্ট্রপতি তার প্রাণ ভিক্ষার আবেদন নাকচ করে দেওয়ার বিষয়টি তাকে জানানো হয়।

কারা সূত্রে জানা গেছে, রিপনকে সিলেট কেন্দ্রিয় কারাগারের কনডেম সেলে রাখা হয়েছে। ফাঁসির আদেশ পাওয়ার পর পরই যাতে তা কার্যকর করা যায়, সেজন্য ফাঁসির মঞ্চ ও কারাগারের ৮-১০ জন জল্লাদকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।


২০০৪ সালের ২১ মে সিলেটে হযরত শাহজালালের মাজার প্রাঙ্গণে ব্রিটিশ হাই কমিশনার আনোয়ার চৌধুরীকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন পুলিশের এএসআই কামাল উদ্দিন। এছাড়া হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যান পুলিশ কনস্টেবল রুবেল আহমেদ ও হাবিল মিয়া। এ ঘটনায় আহত হন আনোয়ার চৌধুরী ও সিলেটের জেলা প্রশাসকসহ অন্তত ৪০ জন।

আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর মৃত্যুন্ডপ্রাপ্ত তিন আসামি রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন করেন। তাদের আবেদন গত ১৯ মার্চ সর্বোচ্চ আদালতে খারিজ হয়ে যায়। এরপর প্রাণ ভিক্ষার আবেদন করেন দন্ডপ্রাপ্তরা। কিন্তু রাষ্ট্রপতি তাদের আবেদন খারিজ করে দেন।

উল্লেখ্য, রাষ্ট্রপতির নিকট করা জঙ্গি নেতা রিপনের প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ হওয়ার পর থেকে তার কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের কোনাগাঁও গ্রামে রিপনের বাড়িতে অবস্থান নেয় পুলিশ।

কুলাউড়া থানার এএসআই মহিন সংবাদ মেইল টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে ও সকল প্রকার অপ্রীতিকর দুর্ঘটনা এড়াতে রিপনের বাড়ির আশপাশের এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে ।

সংবাদমেইল২৪.কম/এন আই/জে এইচ জেড

Facebook Comments Box

Comments

comments

advertisement

Posted ১০:৪৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, ০৯ এপ্রিল ২০১৭

সংবাদমেইল |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. মানজুরুল হক

নির্বাহী সম্পাদক: মো. নাজমুল ইসলাম

বার্তা সম্পাদক : শরিফ আহমেদ

কার্যালয়
উপজেলা রোড, কুলাউড়া, মেলভীবাজার।
মোবাইল: ০১৭১৩৮০৫৭১৯
ই-মেইল: sangbadmail2021@gmail.com

sangbadmail@2016 কপিরাইটের সকল স্বত্ব সংরক্ষিত