বৃহস্পতিবার ১ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯

সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য মন্ত্রণালয়ের জরুরি নির্দেশ

সংবাদমেইল ডেস্ক | বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | প্রিন্ট  

সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য মন্ত্রণালয়ের জরুরি নির্দেশ

করোনাভাইরাস মহামারি দীর্ঘায়িত হওয়ার কারণে সরকারি কর্মচারীদের ২০২০ সালের বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন (এসিআর) ডোসিয়ার সংরক্ষণকারী কর্তৃপক্ষের দপ্তরে পৌঁছানোর সময়সীমা বাড়িয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবারের (৩০ সেপ্টেম্বর) মধ্যে ডোসিয়ার সংরক্ষণকারী কর্তৃপক্ষের দপ্তরে না পৌঁছালে গত বছরের এসিআর বাতিল হয়ে যাবে।

বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সিনিয়র সচিব/সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে এ কথা জানানো হয়েছে।

এর আগে এসিআর ডোসিয়ার সংরক্ষণকারী কর্তৃপক্ষের দপ্তরে পৌঁছানোর সময়সীমা ছিল ৩০ জুন।

কোনো পঞ্জিকাবর্ষে কোনো কর্মস্থলে কোনো নির্দিষ্ট মেয়াদে একজন অনুবেদনকারীর (নিয়ন্ত্রণকারী ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা) অধীনে অনুবেদনাধীন (যার কাজের মূল্যায়ন) কর্মচারীর কর্মকালীন সার্বিক মূল্যায়নের নাম গোপনীয় অনুবেদন।

ডোসিয়ার হচ্ছে একজন কর্মচারীর কর্মজীবনের সকল গোপনীয় অনুবেদন ও এ-সংক্রান্ত আদেশের কপি, শৃঙ্খলা সংক্রান্ত আদেশের কপি, চাকরি বিবরণী ইত্যাদি সংরক্ষণের জন্য ব্যবহৃত নথি বা ফোল্ডার কিংবা ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে সংরক্ষিত ফোল্ডার।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের চিঠিতে বলা হয়, করোনা মহামারির কারণে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় গত ২৩ মে গোপনীয় অনুবেদন দাখিল, অনুস্বাক্ষর ও প্রতিস্বাক্ষরকরণের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ডোসিয়ার সংরক্ষণকারীর দপ্তরে পৌঁছানোর সময় গত ৩০ জুন বৃদ্ধি করেছিল। করোনা মহামারি দীর্ঘায়িত হওয়ার কারণে বিরাজমান বিশেষ পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীদের দাখিল, অনুস্বাক্ষর ও প্রতিস্বাক্ষরকৃত গোপনীয় অনুবেদন ডোসিয়ার সংরক্ষণকারীর দপ্তরে বিলম্বে পৌঁছেছে/পৌঁছাচ্ছে।

এমতাবস্থায় গত ৩০ জুন পর্যন্ত দাখিল, অনুস্বাক্ষর ও প্রতিস্বাক্ষরিত গোপনীয় অনুবেদন ডোসিয়ার সংরক্ষণকারীর দপ্তরে বিলম্বে পৌঁছানোর বিষয় প্রমার্জন করে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর প্রাপ্ত গোপনীয় অনুবেদন সঠিক হিসেবে গণ্য হবে। ৩০ সেপ্টেম্বরের পর ডোসিয়ার সংরক্ষণকারীর দপ্তরে প্রাপ্ত গোপনীয় অনুবেদন ‘গোপনীয় অনুবেদন অনুশাসনমালা-২০২০’ এর ৩.৪.৫ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নিষ্পত্তি করতে হবে। উল্লেখ্য বিষয়টি কেবল ২০২০ সনের সংশ্লিষ্ট সকলের এসিআরের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

‘গোপনীয় অনুবেদন অনুশাসনমালা-২০২০’ এর ৩.৪.৫ নং অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, সরকার কর্তৃক অন্যকোনো নির্দেশনা না থাকলে কোনো বছরের সিআর (গোপনীয় অনুবেদন) পরবর্তী বছরের এপ্রিল মাসের পরে ডোসিয়ার সংরক্ষণকারী কর্তৃপক্ষের দপ্তরে পাওয়া গেলে তা সরাসরি বাতিল বলে গণ্য হবে।

এক্ষেত্রে অনুবেদনাধীন কর্মচারী যথানিয়মে সিআর দাখিল করলে এবং প্রমাণক যাচাই শেষে তার কোনো ত্রুটি না থাকলে তাকে অব্যাহতি দিয়ে তার পূর্ববর্তী তিন বছরের প্রাপ্ত সিআরের গড় নম্বর দেয়া হবে। তবে পূর্ববর্তী সিআরের সংখ্যা তিন বছরের কম হলে প্রাপ্ত সিআরের ভিত্তিতে গড় নম্বর দেওয়া হবে। তবে আগের কোনো সিআর না থাকলে (জমা দেওয়ার পর হারিয়ে গেলে) ৯৪ নম্বর দিতে হবে বলে অনুশাসনমালায় উল্লেখ করা হয়েছে।

Facebook Comments Box

Comments

comments

advertisement

Posted ১০:০৫ অপরাহ্ণ | বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

সংবাদমেইল |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. মানজুরুল হক

নির্বাহী সম্পাদক: মো. নাজমুল ইসলাম

বার্তা সম্পাদক : শরিফ আহমেদ

কার্যালয়
উপজেলা রোড, কুলাউড়া, মেলভীবাজার।
মোবাইল: ০১৭১৩৮০৫৭১৯
ই-মেইল: sangbadmail2021@gmail.com

sangbadmail@2016 কপিরাইটের সকল স্বত্ব সংরক্ষিত