সোমবার ৬ ডিসেম্বর, ২০২১ | ২১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮

ব্যাটিং লজ্জা : ব্যর্থতার বলয়েই বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক : | মঙ্গলবার, ০২ নভেম্বর ২০২১ | প্রিন্ট  

ব্যাটিং লজ্জা : ব্যর্থতার বলয়েই বাংলাদেশ

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে এবারের বাংলাদেশ দল নিয়ে অনেক আশা ছিল। সাকিব আল হাসান ও বোর্ড প্রেসিডেন্ট জানিয়েছিলেন, এই দল নিয়ে সেমিফাইনালে খেলা সম্ভব। কিন্তু মাঠে নেমে যেন সবই গুড়েবালি।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে আরও একটি লজ্জার রেকর্ড গড়ল বাংলাদেশ দল। সপ্তম আসরের ৩০তম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৮.২ ওভারে ৮৪ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ।  টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টাইগাদের এটা তৃতীয় সর্বনিম্ন স্কোর। এর আগে ২০১৬ সালের ২৬ মার্চ ভারতের কলকাতায় নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১৫.৪ ওভারে ৭০ রানেই অলআউট হয় বাংলাদেশ। তারও আগে ২০০৭ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে ১৫.৫ ওভারে ৮৩ রানে অলআউট হয় টাইগাররা।


মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৬ উইকেটের ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। টস হেরে আগে ব্যাট করে ১৮.২ ওভারে মাত্র ৮৪ রানেই অলআউট হয়ে যায় রিয়াদ বাহিনী। জবাবে মাত্র ১৩.৩ ওভারে ৬ উইকেট হাতে রেখে সহজেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় প্রোটিয়ারা। এবারের বিশ্বকাপে এটি টাইগারদের পঞ্চম পরাজয়। প্রথম রাউন্ডে স্কটল্যান্ডের কাছে হেরেছিল মাহমুদ উল্লাহবাহিনী। সুপার টুয়েলভে এসে হারল টানা চার ম্যাচ।

আজ স্বল্প পুঁজি নিয়েও লড়ছেন তাসকিন-মেহেদিরা। ৮৫ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুতেই টাইগার বোলিংয়ের তোপে পড়ে প্রোটিয়ারা। দলীয় ৩৩ রানেই সাজঘরে ফিরেন দুই ওপেনার রেজা হেন্ডরিক্স ও কুইন্টন ডি কক। চারে নামা এইডেম মার্করাম ফিরেছেন রানে খাতা খোলার আগেই।


ব্যক্তিগত ৪ রানে আউট হয়েছেন হেন্ডরিক্স ও ১৬ করে আউট হয়েছেন ডি কক। প্রথম উইকেটটি তাসকিন আহমেদ ও দ্বিতীয়টি পান মেহেদি হাসান। রানের খাতা খোলার আগেই মার্করামকেও ফিরিয়েছেন তাসকিন।

জয়ের কাছাকাছি গিয়ে সাজঘরে ফিরেন রাশি ভ্যান ডার ডুসেন (২২)। তার উইকেটটি পান নাসুম আহমেদ। অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা ৩১ ও ডেভিড মিলার ৫ রানে অপরাজিত থেকে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। তাসকিন ২টি, নাসুম আহমেদ ও মেহেদি হাসান একটি করে উইকেট পান।


এর আগে, টসে হেরে আগে ব্যাটিং করে মাত্র ৮৪ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই আউট হয়ে যান নাঈম। করেন মাত্র ৯ রান। এরপর সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহীম উভয়েই আউট হন গোল্ডেন ডাকে।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ আউট হন মাত্র ৩ রান করেই। আফিফ হোসেনও ফিরে যান শূন্যতে। ৩৪ রানে পাঁচ উইকেটের পতন হওয়ার পর দলীয় ৪৫ রানে লিটন দাসও ফিরে যান ব্যক্তিগত ২৪ রান করে।

শামীম হোসেন আউট হন ১১ রানে। কিছুটা মেরে খেলার চেষ্টা করা মেহেদী হাসান আউট হন ২৭ রানে। তাসকিন ৩ রান করে রানআউট হন এবং নাসুম আউট হন ০ রানে। দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে কাগিসো রাবাদা ও এনরিখ নর্টিয়া ৩টি করে উইকেট পেয়েছেন। এছাড়া তাবরাইজ শামসি ২টি উইকেট নেন। কাগিসো রাবাদা ম্যাচসেরা হন।

টানা চতুর্থ পরাজয়ে যা বললেন মাহমুদউল্লাহ

আফ্রিকার বিপক্ষে পরাজয়ের পর বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বলেন, আমার মনে হয় প্রথমার্ধে বোলিং করার জন্য উইকেট বেশ ভালো ছিল। তবে আমরাও ভালো ব্যাটিং প্রদর্শন করতে পারিনি।

বোলারদের প্রশংসা করে রিয়াদ বলেন, বোলিংয়ে তাসকিন ভালোই করেছে। মোস্তাফিজের পরিবর্তে তাসকিনকে একাদশে রাখার কারণ ছিল সে বেশ ছন্দে আছে। ভালো বোলিং করছে।

বিশ্বকাপের মূলপর্বে টানা চার ম্যাচে পরাজয় নিয়ে অধিনায়ক বলেন, টানা চার ম্যাচে হেরে যাওয়াটা সত্যিই হতাশাজনক। আমরা দুটি ম্যাচ জিততে পারতাম। আর সেটি করতে পারল গল্পটা অন্যরকম হতো।

 

Facebook Comments Box

Comments

comments

advertisement

Posted ৮:২৭ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০২ নভেম্বর ২০২১

সংবাদমেইল |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. মানজুরুল হক

নির্বাহী সম্পাদক: মো. নাজমুল ইসলাম

বার্তা সম্পাদক : শরিফ আহমেদ

কার্যালয়
উপজেলা রোড, কুলাউড়া, মেলভীবাজার।
মোবাইল: ০১৭১৩৮০৫৭১৯
ই-মেইল: sangbadmail2021@gmail.com

sangbadmail@2016 কপিরাইটের সকল স্বত্ব সংরক্ষিত