মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর, ২০২১ | ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮

জেলা পরিষদকে আরও কার্যকর করতে আইন সংশোধন হচ্ছে : মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম

অনলাইন ডেস্ক : | শুক্রবার, ০৫ নভেম্বর ২০২১ | প্রিন্ট  

জেলা পরিষদকে আরও কার্যকর করতে আইন সংশোধন হচ্ছে : মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম

জেলা পরিষদকে আরো শক্তিশালী ও কার্যকর করতে আইন সংশোধন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।
তিনি আজ রাজধানীর একটি হোটেলে স্থানীয় সরকার বিভাগ ও ইউএনডিপি’র উদ্যোগে আয়োজিত ‘এসডিজি অর্জনে জেলা পরিষদকে শক্তিশালীকরণ’ শীর্ষক এক জাতীয় কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা জানান।
উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ আইনকেও যুগোপযোগী করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করে তাজুল ইসলাম বলেন, ইতোমধ্যে জেলা পরিষদ আইন সংশোধনের কাজ চূড়ান্ত করা হয়েছে, যা মন্ত্রী পরিষদ সভায় উত্থাপনের অপেক্ষায় রয়েছে।
তিনি বলেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানদের যৌক্তিক কোনো মতামত ও পরামর্শ থাকে তাহলে সেগুলোকেও আমলে নিয়ে সংশোধন করে আইনকে যুগোপযোগী করা হবে।
মন্ত্রী বলেন, কয়েকটি জেলায় ১৩ থেকে ১৬টি উপজেলা রয়েছে। আবার কোনো জেলায় ৩টি অথবা ৫ থেকে ১০টি উপজেলা রয়েছে। কিন্তু সকল জেলা পরিষদ সদস্য সংখ্যা ২০ জন। অন্যদিকে, প্রত্যেক জেলা আর্থিকভাবে সমান নয়।
তিনি বলেন, তাই সংশোধিত আইনে প্রতিটি উপজেলা থেকে একজন করে সদস্য এবং তিনটি উপজেলা থেকে একজন নারী সদস্য নিয়ে জেলা পরিষদ গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পৌরসভা থেকেও মেয়র বা তার প্রতিনিধি পরিষদে সদস্য থাকবেন।
দেশের উন্নয়নে জেলা পরিষদকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান হিসেবে উল্লেখ করে মো. তাজুল ইসলাম বলেন, কোনো প্রতিষ্ঠানই একদিনে শক্তিশালী হয় না। কাঙ্খিত লক্ষ্যেও পৌঁছাতে পারে না।
স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ দেশের উন্নয়নে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে বলে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর সমৃদ্ধ বাংলা গড়তে হলে একটি পরিকল্পিত দেশ দরকার। তাই শহর-নগর, গ্রাম-গঞ্জ সকল জায়গাতেই পরিকল্পিত অবকাঠামো নির্মাণ করতে হবে। এক্ষেত্রে জনপ্রতিনিধিরা সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখতে পারে।
পরিকল্পনাবিদ নিয়োগসহ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানদের বিভিন্ন দাবি পূরণের আশ্বাস দিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, একটি প্রতিষ্ঠান তখনই মর্যাদাশীল হয় যখন তার স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা থাকে। জেলা পরিষদেও তা নিশ্চিত করতে হবে।
বিশ্বের যেকোনো দেশের তুলনায় বাংলাদেশে সম্প্রীতির বন্ধন অত্যন্ত শক্তিশালী বলে উল্লেখ করে তাজুল বলেন, দেশে দীর্ঘদিন ধরে সকল ধর্মের মানুষ স্বাধীনভাবে বসবাস করছে। আর অসাম্প্রদায়িক চেতনার ভিত্তিতেই দেশ স্বাধীনতা লাভ করেছে।
তিনি বলেন, স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি এই সম্প্রীতির বন্ধনে আঘাত করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে। তাদের সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করলে দেশের উন্নয়ন কেউ ঠেকাতে পারবে না।
স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউএনডিপি’র আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জি এবং সুইজারল্যান্ডের অ্যাম্বাসেডর নাথালিয়া চুয়ার্ড।
এছাড়াও সভায় স্থানীয় সরকার বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ, শিক্ষাবিদ, বিভিন্ন উন্নয়ন সহযোগী দেশ ও সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

-সূত্র : বাসস


Facebook Comments Box


Comments

comments

advertisement

Posted ৩:৩৭ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, ০৫ নভেম্বর ২০২১

সংবাদমেইল |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. মানজুরুল হক

নির্বাহী সম্পাদক: মো. নাজমুল ইসলাম

বার্তা সম্পাদক : শরিফ আহমেদ

কার্যালয়
উপজেলা রোড, কুলাউড়া, মেলভীবাজার।
মোবাইল: ০১৭১৩৮০৫৭১৯
ই-মেইল: sangbadmail2021@gmail.com

sangbadmail@2016 কপিরাইটের সকল স্বত্ব সংরক্ষিত