বুধবার ১৯ জানুয়ারি, ২০২২ | ৫ মাঘ, ১৪২৮

চায়ের দেশের চা যাদুঘর

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি,সংবাদমেইল২৪.কমঃ | শনিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৬ | প্রিন্ট  

চায়ের দেশের চা যাদুঘর

চায়ের রাজ্যের রাজধানীখ্যাত পর্যটন নগরী শ্রীমঙ্গলে রয়েছে অনেকগুলো দর্শনীয় স্থান। আর এই দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে একটি হলো শত বছরের চা বাগানের ইতিহাস, ঐতিহ্য নিয়ে গড়ে উঠা চায়ের দেশের চা যাদুঘর। চায়ের বিভিন্ন জাত, চা-চাষ সম্পর্কিত নানা উপাদান ও চা চাষের ইতিহাসকে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে শ্রীমঙ্গলের টি-বোর্ডের উদ্যোগে গড়ে তোলা হয়েছে এটি।

২০০৯ সালে শ্রীমঙ্গল শহর থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে ব্রিটিশ কারিগর নামক স্থানে উদ্বোধন করা হয় এই চা যাদুঘরটি। ছোট ছোট চারটি কক্ষ, দুটি পাশাপাশি, দুটি কয়েক গজ দূরে। সেখানে একদিকে রয়েছে নির্যাতনের হাতিয়ার, অন্যদিকে শ্রমিকদের ব্যবহৃত নানান যন্ত্রপাতি। তাছাড়া চা যাদুঘরে বঙ্গবন্ধুর একটি প্রতিকৃতিও রয়েছে। খালি চেয়ার-টেবিলের পেছনে সাদা পাঞ্জাবি-পাজামা পরিহিত বঙ্গবন্ধু ঠায় দাঁড়িয়ে আছেন। বিশাল ছবিটা দেখে মুগ্ধতা ছুঁয়ে যায়।


১৯৫৭-৫৮ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান চা বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন। আর সেই সুবাদে এসেছিলেন শ্রীমঙ্গলের নন্দবানী চা বাগানে। তৎকালিন সময়ে বঙ্গবন্ধু যে চেয়ারে বসে মিটিং করেছিলেন সেই চেয়ারটি অতি যতœ সহকারে রাখা হয়েছে এখানে। রাখা হয়েছে মিটিংয়ের সেই টেবিলটিও।

এখানে প্রদর্শনের জন্য রাখা হয়েছে, ব্রিটিশ আমলে চা-বাগানে ব্যবহার হওয়া বিভিন্ন যন্ত্রপাতি, চা শ্রমিকদের ব্যবহৃত বিশেষ কয়েন, বাগান লাগোয়া ব্রিটিশ বাংলোয় ব্যবহৃত শতাধিক আসবাবপত্র, ব্রিটিশ আমলের ফিল্টার, চা গাছের মোড়া-টেবিল, প্রোনিং দা, প্লান্টিং হো, রিং কোদাল ইত্যাদি।


এছাড়াও এখানে রয়েছে ব্রিটিশ আমলে চা শ্রমিকদের ব্যবহৃত খুন্তি, কোদাল, চয়ন যন্ত্র, কাটার, কোদাল, ত্রি-ফলা টাইপের কোদাল, মহিলা শ্রমিকদের ব্যবহৃত মাদুলী, নুপুর, ঝুমকা, নানা ধরনের রুপার গহনা ইত্যাদি এ জাদুঘরে স্থান পেয়েছে। স্থান পেয়েছে ব্রিটিশ ও পাকিস্তান আমলে ব্যবহৃত রৌপ্য তা¤্র মুদ্রা।

অনেক ছোট পরিসরে হলেও চা যাদুঘরটি চা শিল্পের ইতিহাসকে তুলে ধরার প্রয়াস করছে। ১৮৪০ সালে চট্টগ্রামে প্রথম পরীক্ষামূলকভাবে চা চাষ শুরু হয়। এরপর ১৮৫৭ সালে সিলেটে বাণিজ্যিকভাবে চা শিল্পের বিকাশ শুরু। এই এই চা যাদুঘরে চা বাগানের দেড়শ বছরের ইতিহাস তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে।


চা যাদুঘরটিতে আরো রয়েছে নেপচুন চা বাগান থেকে সংগৃহীত কেরোসিনের কুপি দিয়ে চালিত মাঝারি ফ্রিজ, মাথিউড়া চা বাগান থেকে প্রাপ্ত হাতে ঘোরানো টেলিফোন সেট। আরও রয়েছে ব্রিটিশ আমলের টারবাইন পা¤প, সার্ভে চেইন, হস্তচালিত নলকূপ, লিফট পা¤প, সিরামিকের পানির ফিল্টার, সিরামিক জার, ঊনবিংশ শতাব্দীর প্রাচীন বৈদ্যুতিক পাখা, পুরনো রেডিও টেলিফোন সেট,  প্রনিং দা, টাইপ রাইটার, প্রাচীন পিএইচ মিটার ও চা প্রসেসিং যন্ত্রপাতি।

চা বাগানের ইতিহাস,ঐতিহ্য সবার কাছে তুলে ধরতে শ্রীমঙ্গলের এই চা যাদুঘরটির আরো উন্নয়ন করা প্রয়োজন বলে মনে করছেন বিভিন্ন জায়গা থেকে আগত দর্শনার্থীরা।

সংবাদমেইল২৪.কম/এসটি/এনএস

Facebook Comments Box

Comments

comments

advertisement

Posted ১২:৩৩ অপরাহ্ণ | শনিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৬

সংবাদমেইল |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. মানজুরুল হক

নির্বাহী সম্পাদক: মো. নাজমুল ইসলাম

বার্তা সম্পাদক : শরিফ আহমেদ

কার্যালয়
উপজেলা রোড, কুলাউড়া, মেলভীবাজার।
মোবাইল: ০১৭১৩৮০৫৭১৯
ই-মেইল: sangbadmail2021@gmail.com

sangbadmail@2016 কপিরাইটের সকল স্বত্ব সংরক্ষিত