মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি, ২০২২ | ১১ মাঘ, ১৪২৮

কুলাউড়ায় জেলে পল্লীর শিশুরা মৃত্যুঝুঁকিতে!

বিশেষ প্রতিনিধি,সংবাদমেইল২৪.কম | সোমবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ | প্রিন্ট  

কুলাউড়ায় জেলে পল্লীর শিশুরা মৃত্যুঝুঁকিতে!

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় হাম-রুবেলায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুঝুঁকিতে উপজেলার ভূকশীমইলের সাদিপুর জেলে পল্লীর ১৬ জন শিশু। অপরদিকে ৯ মাসের একটি শিশুর মৃত্যুর হয়েছে বলে জানিয়েছে পরিবার।

জানা যায়, গত দুই মাসে পুরো উপজেলা জুড়ে ২০ এর অধিক শিশু আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। তাছাড়াও ওই এলাকায় ১৭ জন শিশু সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) টিকা পাননি। হাম-রুবেলা সংক্রামক ব্যাধি হওয়ায় মারাত্মক ঝুঁকিতে রয়েছে শিশুরা।


উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রমতে,উপজেলার সাদিপুর এলাকায় হাম-রুবেলায় আক্রান্ত হয় ০ থেকে ৫ বছর বয়সের ১৬ জন শিশু। এছাড়াও ১৭ জন শিশুকে সনাক্ত করা হয় যাদেরকে ইপিআইয়ের কোন টিকা (ভ্যাকসিন) দেওয়া হয়নি। তাদের অধিকাংশের বয়স ৩ থেকে ৫ বছর।

সরেজমিনে ওইসব এলাকায় ঘুরে জানা যায়, ভূকশীমইলের দক্ষিণ সাদিপুর গ্রামের কালা মিয়ার ৯ মাসের শিশুকন্যা রীমা আক্তার প্রথমে হাম-রুবেলা রোগে আক্রান্ত হয়ে গত বছরের ১৮ নভেম্বর মারা যায়। রিমা’র মা লিজা বেগম ও দাদি নাজমা বেগম বলেন নভেম্বর মাসের ১৩ তারিখ জ্বর ও গায়ে ফেরা (হাম) হওয়ায় তাকে কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখান থেকে মৌলভীবাজার পরবর্তীতে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।


এলাকার প্রবীণ ব্যাক্তি আব্দুল খালিক ও সরফর মিয়া জানান, রিমা আক্তার হাম রোগে অসুস্থ হওয়ার পর সপ্তাহ খানেকের মধ্যে আশেপাশের কয়েকটি ঘরের প্রায় ৮ জন শিশু এ রোগে আক্রান্ত হয়। মাস খানেক আগে হেলাল মিয়ার আড়াই বছরের মেয়ে সাউদা এ রোগে আক্রান্ত হয়ে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। তারা আরও বলেন সপ্তাহ খানেক আগে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ও ইপিআই এর মাঠকর্মীরা সাদিপুর এসে হাম রোগে আক্রান্ত বেশ কয়েকজন শিশুকে সনাক্ত করেন। এই এলাকায় নভেম্বর মাস ধরে শিশুরা হাম রোগে আক্রান্ত হওয়ায় এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ছে। দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে বিপদ বাড়তে পারে তার অশংকায় রয়েছেন।

এদিকে শিশু বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, হাম-রুবেলা সংক্রামক রোগে আক্রান্ত শিশুরা হাঁচি কাশির মাধ্যমে সুস্থ শিশুও দ্রুত আক্রান্ত হয়। রোগ প্রতিরোধের জন্য ১০ টি (ইপিআই) এর টিকা প্রদান করতে হয়। দ্রুত এর প্রতিকার না করা গেলে এতে আরও ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে।


কুলাউড়া উপজেলা হেলথ্ ইনচার্জ আব্দুল আহাদ ও সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির এমটি আপ্তাব হোসেন বলেন, এই এলাকায় আমাদের জরীপ অভিযান চলছে। এ পর্যন্ত জনবহুল এই ওয়ার্ডের ৮ টি ইউনিটে হাম রোগে আক্রান্ত ১৬ জন শিশু ও টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) টিকা পাননি এমন ১৭ জন শিশু সনাক্ত করা হয়েছে।

কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুরুল হক সংবাদমেইলকে বলেন, আমরা এ রোগের প্রকোপ কমাতে কাজ করে যাচ্ছি। হাম রোগ ও এর টিকা পাননি এমন (৯ থেকে ২৩ মাস বয়সী) শিশু সনাক্ত করে তাদেরকে টিকা প্রদানের আওতায় আনা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন হাম রোগে আক্রান্ত ও ইপিআই’র টিকা পায়নি যে সকল শিশুরা তাদের বেশিরভাগই ৪/৫ বছরের। অনেক আগেই তারা ইপিআইয়ের টিকা থেকে বাদ পড়ায় এখন তারা আক্রান্ত হচ্ছে।

মৌলভীবাজারের সিভিল সার্জন ডা. সত্যকাম চক্রবর্তী সংবাদমেইলকে বলেন, আমরা খোঁজ নিয়ে তাদের চিকিৎসার দিয়েছি। ৯মাস থেকে ১৮মাস বয়সী ৩৬জন শিশু কোন প্রকার ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়নি তাদেরকে ভ্যাকসিন প্রদান করেছি। কুলাউড়ার সাদীপুর এলাকার কালা মিয়ার মেযে রিমা আক্তার লিমা (৯মাস) এর শিশু হাম রোগে আক্রান্ত হয়ে  মৃত্যুর বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন. এখন পর্যন্ত আমি এ বিষয়ে অবগত নয়। তবে এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে দেখবো।

সংবাদমেইল২৪.কম/এসএইচএস/এসএ

Facebook Comments Box

Comments

comments

advertisement

Posted ৩:৫৪ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৭

সংবাদমেইল |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. মানজুরুল হক

নির্বাহী সম্পাদক: মো. নাজমুল ইসলাম

বার্তা সম্পাদক : শরিফ আহমেদ

কার্যালয়
উপজেলা রোড, কুলাউড়া, মেলভীবাজার।
মোবাইল: ০১৭১৩৮০৫৭১৯
ই-মেইল: sangbadmail2021@gmail.com

sangbadmail@2016 কপিরাইটের সকল স্বত্ব সংরক্ষিত