বুধবার ৮ ডিসেম্বর, ২০২১ | ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮

এই দুর্ঘটনার দায় কার?

আব্দুল বাছিত বাচ্চু :- | মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯ | প্রিন্ট  

এই দুর্ঘটনার দায় কার?

কুলাউড়ার ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ ট্রেন দূর্ঘটনার শোক এখনো কাটিয়ে উঠতে পারেনি এই জনপদের লোকগুলো । সর্বত্র ভয় আতংক আহাজারি আর দীর্ঘ নিশ্বাস। এই পঞ্চাশ বছরে সম্ভবত এটাই এই এলাকায় সবচেয়ে বড় রেল দুর্ঘটনা। আমার এই বয়সে ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ার অনেক ঘটনা দেখেছি। কিন্তু ব্রিজ ভেঙে ট্রেনের বগি নীচে পড়ে যাওয়ার কোন খবর আমার সাংবাদিকতা জীবনে লিখিনি। এই দুর্ঘটনায় এ পর্যন্ত ৪ জনের লাশ পাওয়া গেছে। নিখোঁজ আছে দুইজন। অসংখ্য মানুষ আহত হয়েছে। যারা মারা গেছে তারাতো বেচে গেলো। কিন্তু যারা অঙ্গপ্রত্যঙ্গ হারিয়েছে সারাজীবন এই ঘটনার বুঝা বয়ে বেড়াতে হবে সেই লোকগুলোকে । কিন্তু এই ঘটনার জন্য দায়ী কে কারা????

গত ২৯ বছরে ( সংসদীয় সরকার ব্যবস্থায় ফেরার পর) দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি(এডিপি)র আকার ১৫ হাজার কোটি থেকে লাখ কোটির কোটা ছাড়িয়ে গেছে। প্রয়াত অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান আর শাহ এ এস এম কিবরিয়ার সময় ঢাকা সিলেট সড়ক পথে কিছু উন্নয়ন হলেও সিলেট-আখাউড়া রেল সেকশন ও সড়ক বিভাগে উন্নয়নের ছোয়া তেমন লাগেনি। কিছু স্টেশনের আধুনিকায়ন ছাড়া তেমন কিছুই হয়নি। ক’বছর আগে সমকাল পত্রিকায় কাজ করাবস্থায় এই সেকশনে ঝুকি পূর্ণ ব্রিজগুলোর বিষয়ে অনেক প্রতিবেদন লিখেছি। লিখেছি রেলপথে নতুন ট্রেনের কথা।বন্ধ স্টেশনগুলো চালু করার কথা। লিখেছি নাটবল্টু চুরি হয়ে রেলপথ ঝুকিপূর্ণ হয়ে যাওয়ার কথা। ডাবল লাইন নির্মাণ আর ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানোর কথা।বগি পরিবর্তন মেরামত সংস্কারের কথা। কিন্তু আমাদের দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা এখন অনেক ব্যস্ত। উনাদের এসব খবর পড়ার সময় নেই। সাংবাদিকেরা কি করলে খবর লিখতে পারবে না সেই আইন কানুন তৈরি করতেই বেশিরভাগ সময় চলে যাচ্ছে। তাই সড়ক ও রেলপথে সংস্কার করার কথা ভাবার সময় কোথায়?


আমি মনে করি রেল বিভাগ এই ঘটনার দায় এড়াতে পারে না। রেল বিভাগ অতিরিক্ত যাত্রী উঠার জন্য এই দুর্ঘটনা বলে প্রচার করছেন । কিন্তু এই বাড়তি যাত্রীরা ট্রেনে কেনো উঠেছে?? না উঠলে তারা গন্তব্যে যাবে কিভাবে???

এসব ভাওতাবাজি বাদ দেন। এই দুর্ঘটনায় নিজেদের ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে নিন। নিহতদের পরিবার প্রতি কমপক্ষে ৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিন। আহত অঙ্গপ্রত্যঙ্গ হারানোদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা আর সাথে পুনর্বাসনের জন্য পরিবার প্রতি ৩ লাখ টাকা আর সাধারণ আহতদের মানসিক আঘাতের ক্ষতিপূরণ বাবত কমপক্ষে এক লাখ করে টাকা দিন নতুবা মানুষের আদালতে কিছু না হলেও এই ব্যর্থতার জন্য ইতিহাস ক্ষমা করবে না।


Facebook Comments Box


Comments

comments

advertisement

Posted ১১:০২ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯

সংবাদমেইল |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. মানজুরুল হক

নির্বাহী সম্পাদক: মো. নাজমুল ইসলাম

বার্তা সম্পাদক : শরিফ আহমেদ

কার্যালয়
উপজেলা রোড, কুলাউড়া, মেলভীবাজার।
মোবাইল: ০১৭১৩৮০৫৭১৯
ই-মেইল: sangbadmail2021@gmail.com

sangbadmail@2016 কপিরাইটের সকল স্বত্ব সংরক্ষিত