রবিবার ৩ জুলাই, ২০২২ | ১৯ আষাঢ়, ১৪২৯

আত্মপক্ষ সমর্থনে আরেক দফা সময় পেলেন খালেদা

স্টাফ রিপোর্টার,সংবাদমেইল২৪.কম | বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারি ২০১৭ | প্রিন্ট  

আত্মপক্ষ সমর্থনে আরেক দফা সময় পেলেন খালেদা

ঢাকা: জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের অসমাপ্ত বক্তব্য প্রদানের জন্য আগামী ২৬ জানুয়ারি দিন ধার্য্য করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ আবু আহমেদ জমাদারের আদালতে এ আদেশ দেন।


এ মামলায় খালেদা জিয়া যখন আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দিচ্ছিলেন তখন মামলার সাক্ষীদের শপথকে চ্যালেঞ্জ করে তার পক্ষ থেকে উচ্চ আদালতে আবেদন করা হয়। এর প্রেক্ষিতে তার আইনজীবীরা সময় চেয়ে আবেদন করলে আদালত খালেদা জিয়ার অসমাপ্ত বক্তব্য উপস্থাপনের জন্য ২৬ জানুয়ারি দিন ধার্য করেন।

একই দিন জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার ধার্য্য তারিখ ছিল। এদিন ওই মামলায় দুদকের সাবেক পরিচালক নূর আহমেদের সাক্ষ্য দেন।তার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে তাকে জেরা করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। বিচারক এ মামলার পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করেন ২৬ জানুয়ারি।


এর আগে ৫ জানুয়ারি তৃতীয় বিশেষ জজ আবু আহমেদ জমাদারের আদালতে হাজিরা দেন খালেদা জিয়া।

ওইদিন জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনের অসমাপ্ত বক্তব্য দেয়ার দিন ধার্য ছিল। ওইদিন মামলার সাক্ষী বাতিলের আবেদন আদালত নামঞ্জুর করার বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে রিট করার কথা উল্লেখ করে খালেদা জিয়ার আইনজীবী আত্মপক্ষ সমর্থনের অসমাপ্ত বক্তব্য নিতে আদালতে সময়ের আবেদন করেন।


আদালত তা মঞ্জুর করে ১২ জানুয়া দিন ধার্য করেন।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার এজাহারে জানা যায়, ২০১০ সালের ৮ আগস্ট জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগ আনা হয়। এতে খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি মামলা তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক হারুন অর রশিদ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

২০১৪ সালের ১৯ মার্চ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বাসুদেব রায়।

মামলার অপর আসামিরা হলেন খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী (পলাতক), হারিছের তখনকার সহকারী একান্ত সচিব ও বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার অভিযোগে জানা যায়, ২০০৮ সালের ৩ জুলাই জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা করা হয়।

২০১০ সালের ৫ আগস্ট দুদকের উপ-পরিচালক হারুন আর রশীদ খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

২০১৪ সালের ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বাসুদেব রায়।

মামলায় খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান ছাড়া অন্য আসামিরা হলেন- মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।

সংবাদমেইল২৪.কম/এসএ/এনএস

Facebook Comments Box

Comments

comments

advertisement

Posted ৭:২৫ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারি ২০১৭

সংবাদমেইল |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. মানজুরুল হক

নির্বাহী সম্পাদক: মো. নাজমুল ইসলাম

বার্তা সম্পাদক : শরিফ আহমেদ

কার্যালয়
উপজেলা রোড, কুলাউড়া, মেলভীবাজার।
মোবাইল: ০১৭১৩৮০৫৭১৯
ই-মেইল: sangbadmail2021@gmail.com

sangbadmail@2016 কপিরাইটের সকল স্বত্ব সংরক্ষিত