মাধবপুরে আবদুল মালেক চৌধুরী স্মৃতি পাঠাগারের উদ্বোধন

বিশেষ প্রতিনিধি | ০৬ জানুয়ারি ২০২১ | ৮:২৪ অপরাহ্ণ
অ+ অ-

হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার আন্দিউড়ায় মরহুম আবদুল মালেক চৌধুরী স্মৃতি পাঠাগারের শুভ উদ্বোধন অনুষ্টিত হয়েছে।

(২৭ ডিসেম্বর রবিবার শুভ উদ্বোধন উপলক্ষ্যে পাঠাগারের সভাপতি আমজাদ হোসেন চৌধুরী’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম।



বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী সজিব আহমেদ, মাধবপুর উপজেলার নির্বাহী অফিসার তাসনুবা নাশতারান,সহকারী কমিশনার (ভুমি ) মোঃ মহিউদ্দিন, হবিগঞ্জ মহিলা কলেজের সাবেক ভাইস প্রিন্সিপাল আবদুজ জাহের, মাধবপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রমুখ।

সাংস্কৃতিক সংগঠক কাউছার আহমদের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা মরহুম আবদুল মালেক চৌধুরী’র পুত্র অতিরিক্ত সচিব ও বিটাক এর মহাপরিচালক আনোয়ার হোসেন চৌধুরী।

অতিথিবৃন্দ মরহুম আবদুল মালেক চৌধুরীর নামে পাঠাগার প্রতিষ্ঠা করায় এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান।

বক্তরা বলেন, সমাজকে আলোকিত করার জন্য গ্রন্থগারের কোন বিকল্প নেই। তরুণ সমাজকে সঠিক পথে পরিচালনার ও দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করতে বই পাঠে উৎসাহিত করতে হবে। জ্ঞান চর্চা ব্যতিত সমাজকে আলোকিত করা যাবেনা। আর জ্ঞান চর্চার উৎকৃষ্ট স্থান হলো পাঠাগার।

স্বাগত বক্তব্যে আনোয়ার চৌধুরী বলেন, নব-প্রতিষ্ঠিত এই পাঠাগারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজের লেখা বই, তাঁর জীবন ও কর্মের উপর লেখা বই, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর লেখা বই, মুক্তিযুদ্ধের উপর লেখা বই,স্বাধীনতা যুদ্ধের দলিল পত্র, বৃহত্তর সিলেটের ইতিহাস -ঐতিহ্যের উপর লেখা ,ধর্মীয় গ্রন্থ, গল্প,উন্যাস, শিশুতোষসহ নানা রকম মুল্যবান গ্রন্থাদি পাঠাগারের জন্য সংগ্রহ করা হয়েছে। বই সংগ্রহের উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে। তিনি গুনিয়াউক নিবাসী বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক মোঃ মইনুল ইসলাম, সমাজ সেবক শাহেদ বিন হাসান পলাশ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী,পিআইও মাসুদুল ইসলাম, শিক্ষক সৈয়দ মশিউর রহমান প্রমুখকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান গ্রন্থাগারে বই উপহার প্রদানের জন্য।

প্রধান অতিথি কর্তৃক ফলক উন্মোচন ও মোনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়।

সভাপতি আমজাদ চৌধুরী জানান, প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত লাইব্রেরী পাঠকদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ছাত্র,শিক্ষক,সংস্কৃতিসেবী, প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ ও সমাজের বিপুল বিপুল সংখ্যক গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ ।

Comments

comments

পড়া হয়েছে 201 বার
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
x