কুলাউড়ায় বনায়নের ৩০ হাজার গাছের চারা পুড়িয়ে ফেলার অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি,সংবাদমেইল২৪.কম | ৩০ মার্চ ২০১৯ | ৮:৫৮ অপরাহ্ণ
অ+ অ-

কুলাউড়ায় সামাজিক বনায়নের ত্রিশ হাজার গাছের চারা পুড়িয়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের নলডরি বন বিটের আওতাধীন পানিখাওরি এলাকায় চারা পুড়ানোর অভিযোগ এনে ৬ জনকে আসামী করে শুক্রবার থানায় মামলা করেছেন কুলাউড়া রেঞ্জ কর্মকর্তা মানিক রঞ্জন দে। শনিবার বিকেলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।



জানা যায়, ‘কুলাউড়া রেঞ্জের আওতাধীন নলডরী বিটের রোশনাবাদ মৌজার সরকারী বনভূমিতে ২০ হেক্টর পরিমান জায়গায় সামাজিক বনায়ন করার উদ্দেশ্যে ৩০ হাজার পলিব্যাগে চারা রোপন করা হয়। পলিব্যাগে চারা রোপন করা সহ ৩০ হাজার চারা রোপনে কমপক্ষে ৫ লক্ষ টাকা ব্যয় হয়েছিল। গত সপ্তাহে খাসিয়ারা বন বিভাগের বাউন্ডারি তুলে ফেলে এবং তিন হাজার চারা নষ্ট করে এবং রেঞ্জ কর্মকর্তা মানিক রঞ্জন দে কে প্রাণে হত্যার হুমকি দেয়। উক্ত ঘটনার পর বেগুনছড়া (ইছাইছড়া) পানপুঞ্জির হেডম্যান দিলবাহাদুর লেম্বু খাসিয়ার বিরুদ্ধে কুলাউড়া থানায় জিডি করেন রেঞ্জ কর্মকর্তা। সাধারণ ডায়রি করার পর ক্ষিপ্ত হয়ে লেম্বুর নেতৃত্বে খাসিয়ারা শুক্রবার ভোর বেলায় পুরো শেডের ৩০ হাজার চারা আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দিয়েছে। লেম্বু খাসিয়ার বিরুদ্ধে ১১ টি সরকারি বনভূমি জবরদখলের মামলা রয়েছে।

এ ঘটনায় বন বিভাগের সিলেটের বিভাগীয় বন কর্মকর্তাসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে এবং লেম্বু খাসিয়াকে প্রধান আসামী করে ৬ জনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও ৬-৭ জনকে আসামী করে কুলাউড়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বন বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, খাসিয়া কর্তৃক চারা জ্বালিয়ে দেয়ার ঘটনায় একদিকে ২০ হেক্টর বনভূমি বনবিভাগের হাতছাড়া হওয়ার উপক্রম হয়েছে এবং অন্যদিকে সামাজিক বনায়নের উপকারভোগিরাও আর্থিকভাবে ব্যাপক লোকসানের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। চারা পুড়িয়ে দেয়ার কারণে এ পর্যন্ত প্রায় ৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

রেঞ্জ কর্মকর্তা মানিক রঞ্জন দে শনিবার সন্ধ্যায় বলেন, কে বা কারা ঘটনা ঘটিয়েছে বোঝা যাচ্ছে না। তবে কিছুদিন পূর্বে পুঞ্জির হেডম্যান লেম্বু আমাকে হুমকি প্রদান করলে ২২ মার্চ আমি থানায় জিডি করি। এর জের ধরে পুঞ্জির হেডম্যান লেম্বুর নেতৃত্বে বনায়নের গাছের চারা পুড়ানো হয়েছে।

বেগুনছড়া পুঞ্জির হেডম্যান দিল বাহাদুর লেম্বু শনিবার সন্ধায় বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। বনবিভাগ যে জমিতে নার্সারি করেছে, সেখানে তাঁদের পানের জুম পড়েছে। আমরা কেন অহেতুক নার্সারিতে গাছের ক্ষতি করতে যাবো।

কুলাউড়া থানার এস আই সানাউল্ল্যাহ শনিবার সন্ধ্যায় বলেন, সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। গাছের চারা পুড়ানোর সত্যতা পাওয়া গেছে। বনবিভাগের অভিযোগ তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, বিগত ৬ মাস পূর্বে নলডরী বনবিটের আওতাধীন ওই জায়গাসহ প্রায় একশ একর বনভূমি খাসিয়াদের জবরদখল থেকে উদ্ধার করে বনবিভাগ।

Comments

comments

পড়া হয়েছে 260 বার
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
x