কুলাউড়ায় দারুল ক্বেরাত মজিদিয়া ফুলতলী ট্রাস্টের নাজিম ও প্রধান ক্বারীর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি,সংবাদমেইল২৪.কম | ১০ মার্চ ২০১৯ | ৭:৪২ অপরাহ্ন
অ+ অ-

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার টিলাগাঁওয়ে দারুল ক্বেরাত মজিদিয়া ফুলতলী ট্রাস্টের আওতাধীন একটি কেন্দ্রের নাজিম ও প্রধান ক্বারীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে দারুল ক্বেরাত কেন্দ্রীয় কার্যালয় সেক্রেটারী জেনারেল বরাবরে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।



প্রাপ্ত অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কুলাউড়ার টিলাগাঁও ইউনিয়নের বাগৃহাল মোকামটিলা জামে মসজিদে দীর্ঘদিন থেকে দারুল ক্বেরাত মজিদিয়া ফুলতলী ট্রাস্ট, শাখা কেন্দ্র হিসেবে পরিচালিত হয়ে আসছে। বাগৃহাল গ্রাম ছাড়াও পাশ্ববর্তী লহরাজপুর ও ডরিতাজপুর গ্রামের শিক্ষার্থীরাও প্রতিবছর রমজান মাসে ছহীহ্ শুদ্ধরুপে পবিত্র কোরআন শিখতে এই কেন্দ্রে ভর্তি হয়। ফুলতলী (রঃ) কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত দারুল ক্বেরাত মজিদিয়া ফুলতলী ট্রাস্ট একটি বিশ্বস্থ প্রতিষ্ঠান হিসেবে খ্যাতি ছড়ালেও এখানকার কেন্দ্র চলছে ভিন্ন এক নিয়মে। শাখা কেন্দ্রের নাজিম আব্দুল মছব্বির ও প্রধান ক্বারী মাও. এখলাছুর রহমান ট্রাস্টের নিয়ম-নীতি উপেক্ষা করে সম্পূর্ণ নিজের মতো করে এই কেন্দ্রটি পরিচালনা করছেন। এই কেন্দ্রটি পরিচালনার জন্য নেই কোন কমিটি। প্রতি বছর কেন্দ্রের অনুমোদন আনার পূর্বে নিয়ম মাফিক পরিচালনা কমিটির সদস্যদের নিয়ে সভা আহবান করার কথা থাকলেও এই কেন্দ্রে নিয়ম-নীতি মানা হচ্ছে না। নাজিম সাহেব প্রয়োজন মনে করলে সংশ্লিষ্ট কারী সাহেবদের নিয়ে বৈঠক করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেন। তাছাড়া কেন্দ্র পরিচালনায় এই শাখার নেই কোন ব্যাংক একাউন্ট। কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে চাঁদা আদায়ের জন্য শাখা কেন্দ্রে ‘মানি রিসিট’ প্রদান করা হলেও এই কেন্দ্র পরিচালনার ক্ষেত্রে ভিন্ন পদ্ধতিতে চাঁদা উত্তোলন করার অভিযোগ রয়েছে। যেখানে কেন্দ্র কর্তৃক প্রেরিত মানি রিসিটের সাথে এখানকার চাঁদা আদায়ের হিসেবে গরমিল থাকতে দেখা গেছে। প্রতিবছর পরিচালিত এই কেন্দ্রে আয়-ব্যয়ের হিসাবও প্রকাশ করা হয়নি। এমনকি কেন্দ্রের যাবতীয় হিসাব-নিকাশ, বিল-ভাউচার নাজিম সাহেব ও প্রধান ক্বারী অত্যন্ত কৌশলে তাদের কাছে গুছিয়ে রাখেন।

স্থানীয়রা আরো জানান, ২০১৮ সালে ওই শাখা কেন্দ্রের জমাতে রাবে শাখার ২৩ জন পরীক্ষার্থী একমাত্র শাখার নাজিম ও প্রধান ক্বারীর গাফলতির কারণে চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেনি। যদিও প্রাকৃতিক দুর্যোগ বন্যার অজুহাত দেখিয়ে জকিগঞ্জস্থ প্রধান কার্যালয়ে একটি আবেদনপত্র তারা প্রেরণ করেছেন। কিন্তু টিলাগাঁও ও পৃথিমপাশা ইউনিয়নের অনেক কেন্দ্রের পরীক্ষার্থীরা ঠিকই রবিরবাজার আলিম মাদ্রাসা কেন্দ্রে চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নেন।

প্রাপ্ত অভিযোগ থেকে জানা গেছে, ২০১৮ সালে বাগৃহাল মোকামটিলা জামে মসজিদ শাখা কেন্দ্রের রাবে পরীক্ষার্থীদের রবিরবাজার আলিম মাদ্রসা পরীক্ষা কেন্দ্রে যাতায়াতের বিকল্প বিষয়ে তাৎক্ষণিক স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ শাখা কেন্দ্রের নাজিম ও প্রধান ক্বারীর দৃষ্টি আকর্ষণ করলেও তারা বিষয়টি এড়িয়ে যান।

অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে দারুল ক্বেরাত মজিদিয়া ফুলতলী ট্রাস্ট বাগৃহাল মোকামটিলা জামে মসজিদ শাখা কেন্দ্রের নাজিম আব্দুল মছব্বির অনিয়মের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, যে ২৩ জন পরীক্ষার্থী পরিক্ষায় অংশগ্রহন করতে পারেনি মূলত এরা বন্যা ও ঝড় বৃষ্টির কারনে পরিক্ষা দিতে পারেনি। আমরা চেষ্টা করেছি তাদের পরিক্ষা দেওয়াতে।

কুলাউড়া উপজেলা ক্বারী সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক মাও. মো. মুজিবুর রহমান জানান, কুলাউড়ার বাগৃহাল মোকামটিলা জামে মসজিদ শাখা কেন্দ্রের নাজিম ও প্রধান ক্বারীর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ এনে কেন্দ্রীয় কার্যালয় বরাবরে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে কুলাউড়া উপজেলা ক্বারী সোসাইটিকে তদন্তসহ বিষয়টি খতিয়ে দেখতেও বলা হয়েছে। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখব।

Comments

comments

পড়া হয়েছে 229 বার
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত